অপকর্ম ঢাকতে বাকশালের আওয়াজ তুলছেন প্রধানমন্ত্রী : ফখরুল

প্রকাশিত: ৬:৫৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৯, ২০১৯

অপকর্ম ঢাকতে বাকশালের আওয়াজ তুলছেন প্রধানমন্ত্রী : ফখরুল

নিউ সিলেট ডেস্ক : বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘অপকর্ম’ ঢাকতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাকশালের আওয়াজ তুলছেন। তিনি বলেন, অতীতের মতো একদলীয় শাসন কায়েমের জন্য সরকার পরিকল্পনা করলে তা সফল হতে দেয়া হবে না। আজ শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। ‘স্বাধীনতার মাসে বন্দি গণতন্ত্র, বেগম খালেদা জিয়ার অমানবিক কারাবাস, অসহায় বিচারব্যবস্থা— কোন পথে বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভাটি আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল।
বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মদিন উপলক্ষে গত সোমবার এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধু প্রবর্তিত শাসনব্যবস্থা বাকশাল থাকলে নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক উঠত না, প্রশ্ন উঠত না।
বাকশাল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর এই সপ্রশংস বক্তব্যে উদ্বেগ প্রকাশ করে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা যারা বয়স্ক তারা দেখেছি ১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সাল। তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকার রাষ্ট্র পরিচালনায় যখন ব্যর্থ হতে শুরু করল, যখন ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ হলো তাদের দুর্নীতির কারণে, হাজার হাজার মানুষ না খেতে পেরে যখন মারা গেল, তখন তারা বিরোধীদের নির্মূল করতে প্রথমে বিশেষ ক্ষমতা আইন, তারপর জরুরি অবস্থা জারি করা হল। এরপরও তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি। তখন তারা একদলীয় শাসনব্যবস্থা বাকশাল কায়েম করে। সেই বাকশালের উদ্দেশ্য ছিল ক্ষমতাকে চিরস্থায়ী করা। আজকে বলা হচ্ছে, এটা অত্যন্ত ভালো একটা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল।’
ফখরুল বলেন, ‘তিনি কখন বলছেন, যখন ইলেকশন কমিশন বলছে ভোট ভালো হচ্ছে না। যখন সিইসি বলছেন, আমরা জনগণকে ভোটে আনতে পারছি না। ঠিক তখন আপনি (প্রধানমন্ত্রী) বাকশালের প্রশংসা করছেন। অপকর্মগুলো আড়াল করার জন্য আবার আপনি একদলীয় শাসনের আওয়াজ তুলতে শুরু করেছেন।’
প্রধানমন্ত্রীকে হুঁশিয়ার করে ফখরুল বলেন, ১৯৭৫ সাল আর ২০১৯ সাল এক নয়। সুতরাং একদলীয় শাসন ব্যবস্থা কায়েম করে রাজত্ব চিরস্থায়ী করার যে স্বপ্ন আপনি দেখছেন, এই দেশের জনগণ কোনোদিন সেই স্বপ্ন পূরণ হতে দেবে না’
সরকার এখন সম্পূর্ণভাবে মিথ্যার ওপর, প্রচারণার ওপর নির্ভর করে চলছে বলে মন্তব্য করে ফখরুল বলেন, ‘রাষ্ট্রের সব স্তম্ভ ভেঙে দিয়ে, সব প্রতিষ্ঠান ভেঙে দিয়ে সরকার তার ওপরে রাজত্ব করছে। বিচার বিভাগ শেষ করে ফেলেছে, আইন বলতে কিছু নেই, রাষ্ট্রীয় যে প্রতিষ্ঠান, তা ধ্বংস করে দিয়েছে।’ ‘রাজনৈতিক দলের এই রাষ্ট্র পরিচালনা করার কথা ছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগ কি রাষ্ট্র পরিচালনা করছে? করছে না। এখন প্রশাসনকে দিয়ে রাষ্ট্র পরিচালনা করা হচ্ছে।’ বলেন মির্জা ফখরুল।
জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সাধারণ সম্পাদক সাদেক হোসন খানের সভাপতিত্বে আলোচনায় অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহ মোহম্মদ আবু জাফর প্রমুখ।



এ সংবাদটি 336 বার পড়া হয়েছে.
Spread the love
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •   
  •  
  •  
    11
    Shares
  •  
    11
    Shares
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ শিরোনাম