সিলেট জেলা বিএনপির ভার্চুয়াল স্মরণ সভায়
এমএ হকের নাম চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে : নজরুল ইসলাম খান

প্রকাশিত: ১১:২২ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২০

<span style='color:#ff0000;font-size:20px;'>সিলেট জেলা বিএনপির ভার্চুয়াল স্মরণ সভায় </span> <br/> এমএ হকের নাম চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে : নজরুল ইসলাম খান

নিউ সিলেট রিপোর্ট : বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, এম এ হক ছিলেন আপাদমস্তক জাতীয়তাবাদী আদর্শের একজন সজ্জন ব্যক্তিত্ব ও ভাল মানুষ। তার রাজনীতির মূল থিম ছিল জনকল্যাণ। জীবনে একবার এমপি পদে এবং দুই বার মেয়র পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করেছেন। কিন্তু বিজয়ী হতে পারেননি। তবুও এম এ হক মানুষের কাছ থেকে দুরে সরে যান নি। দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি আর্ত মানবতার কল্যানে সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। জীবনের দীর্ঘ সময় তিনি সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক, সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন, সুসংগঠিত করেছেন ও সিলেট বিএনপিকে শক্তিশালী করেছেন। কিন্তু বিনিময়ে প্রতিদান চান নি কখনো। তার প্রতিপক্ষকে যদি জিজ্ঞেস করা হয় এম এ হক কেমন ছিলেন, তারাই জবাব দিবে এমন সজ্জন ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ বর্তমানে হয়না। সুতরাং এম এ হক ছিলেন সিলেট বিএনপির বটবৃক্ষ। তার অভাব পূরন হবার নয়। তবু এম এ হকদের অবদান কখনো ভুলে যাবার নয়। বলিষ্ট নেতৃত্বের কারণে বিএনপির ইতিহাসে এম এ হকের নাম চির স্মরনীয় হয়ে থাকবে।
গতকাল মঙ্গলবার (২১ জুলাই) বিকেলে প্রয়াত বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা এম এ হক স্মরণে সিলেট জেলা বিএনপি আয়োজিত ভার্চুয়াল স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন তিনি।
সিলেট জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদারের সভাপতিত্বে ও আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আলী আহমদের পরিচালনায় তিনি আরও বলেন, সিলেট বিএনপির সাহসী কণ্ঠস্বর ইলিয়াস আলী এখনো নিখোঁজ। ইলিয়াস আলীর শুন্যতা আজো সিলেটে পুরণ হয়নি। এর মধ্যে এম এ হকের মতো বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদের চলে যাওয়া সিলেট বিএনপির জন্য অপুরনীয় ক্ষতি। তবুও এম এ হকের রাজনৈতিক দর্শনকে অনুস্মরণ করে দলকে সুসংগঠিত করতে শহীদ জিয়ার সৈনিকদের অগ্রনী ভুমিকা পালন করতে হবে।
নজরুল ইসলাম খান বলেন, করোনা মহামারীতে গোটা বিশ^ আজ স্থবির হয়ে আছে। কিন্তু আমাদের সরকার এত সময় হাতে পেয়েও করোনা মহামারী থেকে জাতিকে রক্ষার জন্য কার্যকর কোন উদ্যোগ নিতে পারেনি। তারা করোনা কালে মানুষের জন্য নির্ধারিত ত্রানের টাকা লুটপাট করেছে। করোনা টেস্টের নামে তারা আজ গোটা দেশে সাহেদ ও সাবরিনাদের মতো প্রতারক তৈরী করছে। এ থেকে জাতিকে মুক্ত করতে সকল ক্ষেত্রে একটা পরিবর্তন আনতে হবে। এজন্য জাতীয়তাবাদী আদর্শের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদেরকে ইস্পাত কঠিন ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।
সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান, ভাইস চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা: এজেডএম জাহিদ হোসেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা তাহসিনা রুশদীর লুনা, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা: সাখাওয়াত হাসান জীবন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন মিলন। ভার্চুয়াল সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন ও মহানগর সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম, সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ সিলেটের সভাপতি ডা: শামীমুর রহমান, মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম সিদ্দিকী, ড্যাব সিলেট জেলা সভাপতি ডা: নাজমুল ইসলাম, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ফখরুল ইসলাম ফারুক, শাহ জামাল নুরুল হুদা, মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, মরহুম এম এ হকের পুত্র ব্যারিষ্টার রিয়াশাদ আজিম হক, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মামুনুর রশীদ চেয়ারম্যান, আব্দুল আহাদ খান জামাল, আবুল কাশেম ও শামীম আহমদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল ওয়াহিদ সুহেল, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন নাদিম, মহানগর মহিলা দলের সভাপতি জাহানারা ইয়াসমিন ও জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা আমেনা বেগম রুমি প্রমূখ।
সভা শেষে মরহুম এম এ হকের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও সভায় করোনাক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী বিএনপি নেতাকর্মীদের মাগফেরাত কামনা, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ও তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মাগফেরাত কামনা, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়। তাছাড়া, নিখোঁজ বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলী, ছাত্রদল নেতা ইফতেখার আহমদ দিনার, জুনেদ আহমদ ও গাড়ী চালক আনসার আলীসহ গুমকৃত নেতাকর্মীদের সন্ধান কামনা, করোনাক্রান্ত হয়ে অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা ড. মোহাম্মদ এনামুল হক চৌধুরী এবং অসুস্থ সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র-২ ও জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক কাউন্সিলার এডভোকেট রুকশানা বেগম শাহনাজ, অসুস্থ জেলা মহিলা দলের সভানেত্রী সাবেক কাউন্সিলার সালেহা কবির শেপিসহ অসুস্থ সকল দলীয় নেতাকর্মীদের সুস্থতা কামনা করা হয়।



এ সংবাদটি 47 বার পড়া হয়েছে.
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ শিরোনাম