অবশেষে সেই রহিমা বেগমের মৃত্যু

প্রকাশিত: ১:০৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০২১

অবশেষে সেই রহিমা বেগমের মৃত্যু

নিউ সিলেট রিপোর্ট : স্বামীর দেওয়া আগুনে দগ্ধ সেই রহিমা বেগম মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে গতকাল বুধবার রাত ১০টা দিকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
নিহত রহিমা (২০), মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ দক্ষিণ ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের রফিক উদ্দিনের মেয়ে।
জানা যায়, নিহত রহিমা বেগমের বিয়ে হয় একই উপজেলার দক্ষিণভাগ দক্ষিণ ইউনিয়নের আরেঙ্গাবাদ গ্রামের মুকুল মিয়ার পুত্র শিপন আহমদের সাথে। বিয়ের কয়েকদিন যেতে না যেতে শুরু হয় স্বামী ও তার পরিবারের নির্যাতন। এক পর্যায়ে নির্যাতন সইতে না পেরে গত সাত মাস ধরে পিত্রালয়ে আশ্রয় নেন রহিমা। গত ৪ জুলাই ভোররাতে পিত্রালয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় রহিমার গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন তার স্বামী শিপন আহমদ। ঘটনার পরই তিনি পালিয়ে যান। এসময় রহিমার আত্মচিৎকারে স্বজনরা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে তার অবস্থা বেগতিক দেখে রহিমাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অবশেষে গতকাল রাত ১০টার দিকে মারা যান।
এবিষয়ে বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার মৃত্যুর বিষয়টিও নিশ্চিত কওে রহিমা বেগমর লাশ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রয়েছে। ময়নাতন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।
এদিকে, এ ঘটনায় রহিমার ভাই রাজু আহমদের দায়ের করা মামলায় রহিমার স্বামী শিপন আহমদ ও শ্বাশুড়ি আনুরি বেগম কারাগারে রয়েছেন।



এ সংবাদটি 44 বার পড়া হয়েছে.
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ শিরোনাম